ইয়ামাহা ভিক্সন (Yamaha Vixion) মোটরসাইকেল ফিচার রিভিউ

ইয়ামাহা ভিক্সন


ইয়ামাহা ভিক্সন (Yamaha Vixion) মোটরসাইকেল ফিচার রিভিউ

ইয়ামাহা ভিক্সন হচ্ছে একদম ভিন্ন ধরণের স্টাইলিশ ডিজাইনের একটি মোটরসাইকেল। ইয়ামাহা গ্রুপের অন্যান্য সকল স্পোর্টস বাইকের চাইতে অনেক আলাদা ধরণের নজরকাড়া ডিজাইন নিয়ে হাজির হয়েছে এই মোটরসাইকেলটি। আর স্টাইলিশ ডিজাইনের বাইরেও এই মোটরসাইকেলটিতে রয়েছে অসাধারণ শক্তিশালী সব ফিচার এর মধ্যে রয়েছে ১৪৯ সিসি মানের শক্তিশালী ইঞ্জিন যা বাইকারদের এই বাইক চালানো আরো উপভোগ্য করে তুলবে। এছাড়াও বাইকে আরো রয়েছে চমৎকার সব ফিচার যেগুলো সম্পর্কে জানার পর মোটরসাইকেল প্রেমিরা আই মোটরসাইকেলটি কিনতে বেশ আগ্রহ প্রকাশ করবে। আর তাই আজকে আমি এই ইয়ামাহা ভিক্সন (Yamaha Vixion) মোটরসাইকেলটি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো আশা করি মোটরসাইকেলতি সম্পর্কে জানার পর সকলের বেশ ভাললাগবে মোটরসাইকেলটি। তো চলুন জেনে নেয়া যাক এই মোটরসাইকেলটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যসমূহ।

ডিজাইনঃ

ইয়ামাহা ভিক্সন মোটরসাইকেলটি হচ্ছে একটি বড় দেহের মোটরসাইকেল যেখানে আপনি পাবেন অসাধারণ ডিজাইনের বিশাল আকারের একটি ফুয়েল ট্যাংক যা ইউনিক ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে আর এর নজরকাড়া ডিজাইন মোটরসাইকেল প্রেমিদের মুগ্ধ করবে সহজেই। ইয়ামাহা ভিক্সন মোটরসাইকেলের ফুয়েল ট্যাংকটি বেশ বড় ধরণের এবং বেশ উঁচু ধরণের আর এই ফুয়েল ট্যাংকটি অনেকটা সামনের দিকে বাড়ানো রয়েছে যেখানে রয়েছে চমৎকার দুটি ভিন্ন ধরণের প্লাস্টিক সেপ যা আপনি আগে কোন মোটরসাইকেলে দেখেননি। আর অসাধারণ ডিজাইনের মোটরসাইকেলের সামনের দিকে রয়েছে চমৎকার দেখতে একটি হেডলাইট যেটি দেখতে বেশ আকর্ষনিয়। এছাড়াও বাইকের পেছনের অংশে রয়েছে ঢেউয়ের মতো উঁচু নিচু ধরণের চমৎকার ডিজাইনের বসার সিট যেটি অনেকটা লম্বা আকারের এবং চমৎকার দেখতে। আর আপনি এই মোটরসাইকেলটি ২টি রঙ্গে বাজারে পাবেন সেগুলো হচ্ছে লাল এবং সিলভার।

ইঞ্জিনঃ

৪টি স্ট্রোক, ৪টি ভাল্ভ এবং এসোএইচসি সমৃদ্ধ ইঞ্জিন দিয়ে সাজানো হয়েছে এই ইয়ামাহা ভিক্সন মোটরসাইকেলটি। আর এই বাইকের ডিসপ্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন হচ্ছে ১৪৯ সিসি যা বেশ ভাল মানের একটি ইঞ্জিন এই চমৎকার স্পোর্টস ধরণের বাইকের জন্য। আর এই বাইকের সর্বচ্চ ইঞ্জিনের পাওয়ার হচ্ছে ১৬.৫৯ পিএস এবং ৮৫০০ আরপিএম এবং এর সর্বচ্চ তরকিউ হচ্ছে ১৪.৫ এনএম এবং ৭৫০০ আরপিএম। এছাড়াও এই ইঞ্জিনে সংযুক্ত করা হয়েছে একটি ইএফ আই কার্বুরেটর, একটি টিসি আই ইগনিশন সিস্টেম এবং একটি ইলেকট্রিক ও একটি কিক ধরণের বাইক চালু করার মাধ্যম যেগুলো আপনাকে এই বাইকটি দ্রুত চালু করতে সাহায্য করবে।

স্পিড এবং মাইলিয়েজঃ

ইয়ামাহা ভিক্সন এই মোটরসাইকেলটি আপনাকে বেশ ভাল মানের স্পিড এবং মাইলিয়েজ দেবে কারণ এই মোটরসাইকেলটি প্রতি ঘন্টায় সর্বচ্চ ১৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত গতি বেগে ছুটতে সক্ষম। এবং এই বাইকটি প্রতি লিটারে ৪৫ কিলোমিটার পর্যন্ত মাইলিয়েজ দেবে।

ফুয়েল ট্যাংকঃ  

ইয়ামাহা ভিক্সন এই মোটরসাইকেলটিতে রয়েছে চমৎকার ভিন্ন ধরণের ডিজাইনের একটি ফুয়েল ট্যাংক, এবং ভিন্ন ধরণের চমৎকার ডিজাইনের এই বাইকের ফুয়েল ট্যাংকটি সর্বচ্চ ১২ লিটার পর্যন্ত ফুয়েল ধারণ করতে সক্ষম যার দ্বারা আপনি সহজেই ৫৪০ কিলোমিটার যেতে পারবেন সম্পূর্ণ ভর্তি ফুয়েল ট্যাংকে।

সাস্পেনশনঃ

ইয়ামাহা ভিক্সন এই মোটরসাইকেলটিতে দুইটি মজবুত এবং শক্তিশালী সাস্পেনশন সিস্টেম আছে যা এই বাইকটিকে আরো মজবুত রাখতে সহায়তা করবে। এই বাইকের সামনের দিকে একটি টেলিস্কপিক এবং পেছনের দিকে একটি মনো ধরণের সাস্পেনশন সিস্টেম রয়েছে।

ব্রেকঃ

ইয়ামাহা ভিক্সন মোটরসাইকেল চালকদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে দুটি অসাধারণ এবং শক্তিশালি ব্রেকিং সিস্টেম তৈরি করেছে যেগুলো এই বাইকটিকে সহজেই নিয়ন্ত্রন করতে সাহায্য করবে। এই বাইকের  সামনের দিকে ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনের দিকেও একটি ডিস্ক ধরণের ব্রেকিং সিস্টেম রয়েছে যেগুলো সত্যিই বেশ মজবুত এবং শক্তিশালী।

দামঃ

ইয়ামাহা ভিক্সন মোটরসাইকেলটি বাংলাদেশের বাজার অনুসারে এর বর্তমান বাজার মূল্য মাত্র ৩,৬০,০০০ টাকা।

শেষ কথাঃ

ইয়ামাহা ভিক্সন হচ্ছে ইয়ামাহা মোটরসাইকেল কোম্পানির অসাধারণ ইউনিক ডিজাইনের নতুন একটি মোটরসাইকেল। আর এটি একটি স্পোর্টস ক্যাটাগরির অসাধারণ ডিজাইনের মোটরসাইকেল যার চমৎকার ডিজাইন উন্নত মানের ইঞ্জিন কুয়ালিটি এবং অসাধারণ সব ফিচার সমূহ আপনাকে সহজেই এই মোটরসাইকেলের প্রতি আকৃষ্ট করবে। আর চমৎকার ডিজাইনের মোটরসাইকেলটি দেখার পর অনেকেই প্রথম দর্শনেই মোটরসাইকেলটির প্রেমে পড়তে বাধ্য হবে। আর অনেকেই এই মোটরসাইকেলটি সম্পর্কে জানার পর এটি কিনতে আগ্রহী হবে।

Full Specification of Yamaha Vixion