ইয়ামাহা আর-১৫ ভি৩ (Yamaha R15 V3) মোটরসাইকেল ফিচার রিভিউ

ইয়ামাহা আর-১৫ ভি৩


ইয়ামাহা আর-১৫ ভি৩ (Yamaha R15 V3) মোটরসাইকেল ফিচার রিভিউ

ইয়ামাহা আর-১৫ ভি৩ (Yamaha R15 V3) একটি আরামদায়ক, ব্যবহার বান্ধব, সহজলভ্য এবং স্টাইলিশ মোটরসাইকেল যা সব বয়সের মানুষের পছন্দের একটি মোটরসাইকেল। আমাদের দেশে জাপানিজ পন্যের অনেক কদর। তারই ধারাবাহিকতায় জাপানিজ ব্রান্ড হিসেবে ইয়ামাহা বাইক সুনাম ও দাপটের সাথে তাদের বিক্রি চালিয়ে যাচ্ছে। এই বাইকটির স্টাইল এতটাই সু গঠিত যে, যে কারো চোখে এটি দেখা মাত্রই ভালো লেগে যায় ।

আজ ইয়ামাহা আর-১৫ বাইক সমন্ধে বিস্তারিত অভিজ্ঞতা শেয়ার করব:

স্টাইলঃ

ইয়ামাহা আর-১৫ বাইকটি অনেক আধুনিক এবং জমকালো স্টাইলে গঠিত। এই বাইকটির স্টাইল দেখেই যে কেউ এর প্রেমে পড়ে যায় আর এর ফীচারগুলোও অনেক চোখ ধাঁধাঁনো। ইয়ামাহা আর-১৫ মডেলটি মুলত স্পোর্টস ক্যাটেগরীর বাইক। আর তাই স্বল্প পথ অল্প সময়ে পাড়ি দিতে এই বাইকের কোন জুড়ি নেই।

কন্ট্রোলঃ

এই বাইকটির কন্ট্রোল সিস্টেম এতো সহজ যে, এই বিষয়ে বাইকের কোনো প্রকার নেগেটিভ কিছু খুজে বের করা যায়না। যে কোনো রাস্তায় যে কোনো মুহুর্তে বাইককে নিয়ন্ত্রন করা যায় । ব্রেক, টায়ার, সাসপেনশন গুলো এতোটাই ভালো যে অনেক  স্মুথ ভাবে বাইকের উপরে নিয়ন্ত্রন রাখা যায়।

স্পীডঃ

 ইয়ামাহা আর-১৫  বাইকের স্পীড নিয়ে আসলে বলার কিছুই নেই । যে কাউকেই এর স্পীড সন্তুষ্ট করতে পারে। আপনি প্রত্যহ ১২০কিমি/ঘন্টা ক্রস করে বাইক চালালেও কখনই এর ইঞ্জিনের উপর চাপ পড়ে বলে মনে হবেনা।

মাইলেজঃ

যেহেতু ইয়ামাহা আর-১৫ একটি স্পোর্টস ক্যাটেগরীর বাইক তাই তেল সাশ্রয়ী হবে না এটি আপনাকে মানতে হবে। স্পোর্টস ক্যাটেগরীর বাইক হওয়া সত্যেও লিটারে প্রায় ৩৫কিমি পথ পাড়ি দিতে সক্ষম এই বাইকটি। যা অবশ্যই সন্তোষজনক। অনেক সময় যত্নের উপর বাইকের পারফর্মেন্স নির্ভর করে। আর আপনার উচিৎ সর্বোচ্য পারফর্মেন্স পেতে যথাসাদ্ধ্য  বাইকটির যত্ন নেওয়া।

কেন ইয়ামাহা আর-১৫ একটি ভালো মানের বাইক?

ইয়ামাহা আর-১৫ বাইকটিকে আমরা রিকমান্ড করার মুল কারণ হল এর অসাধারন কন্ট্রোলিং সিস্টেম, চওড়া টায়ার, রেডি পিকআপ, শক্তিশালী ইঞ্জিন এবং সর্বোপরি হাই লেভেলের পারফর্মেন্স।

দামঃ

ইয়ামাহা আর-১৫ মোটরসাইকেলটি বাংলাদেশের বাজার অনুসারে এর বর্তমান বাজার মূল্য মাত্র ৫,০০,০০০ টাকা।

পরিশেষে এটা বলা যায় যে, বাইকটি স্টাইল এবং পারফরমেন্সের দিক থেকে অসাধারন। যেহেতু ইয়ামাহা একটি জাপানি ব্রান্ড এবং বিশ্ব ব্যাপী এর  সুনাম রয়েছে তাই পারফরমেন্সের উপর কোন প্রকার সন্দেহ ছাড়াই এর উপরে আস্থা রাখা যায়। যারা নতুন বাইক কেনার কথা ভাবছেন তাদরকে আমাদের পরামর্শ নিশ্চিন্তে কিনে ফেলতে পারেন একটি অসাধারন ইয়ামাহা আর১৫। অনেকের মনে সন্দেহ থাকে যে এই বাইকটি ব্যাবহার ব্যয়বহুল। আমি বলবো আপনি কিছুদিন ব্যবহার করলেই বুঝবেন এর পারফর্মেন্সের কাছে খরচটি তেমন কিছুই মনে হবে না। বরং এই বাইকটি হতে পারে আপনার অভিজাত্যের প্রতীক।

আপনার বাইক যাত্রার শুভ কামনা করে শেষ করছি । ভালো থাকবেন সবাই!

Full Specification of Yamaha R15 V3