হোম মোটরসাইকেল টিপস খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে মোটরসাইকেল চালানোর টিপস

খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে মোটরসাইকেল চালানোর টিপস

0
0
খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে মোটরসাইকেল চালানোর টিপস

খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে মোটরসাইকেল চালানোর টিপস

কথায় আছে আকাশের রং আর মানুষের মন কখন যে কি আবহাওয়া বিরাজ করবে তা বলা মুশকিল। খারাপ আবহাওয়াতে  বাইক চালানো ঝুঁকিপূর্ণ কারণ যখন বৃষ্টির ফোটা মাটিতে পড়ে এটা রাস্তাকে পিছলা করে দেয় । আর এতে দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা বেশি থাকে। অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া খারাপ আবহাওয়ায় বাইক না চালানোই উত্তম। যদি আপনি এমন পরিস্থিতিতে পরেন যে আপনাকে বাইক নিয়ে বের হতেই হবে তাহলে আপনাকে  কিছু অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। আর আজকের এই পোস্টে আমি আপনাদের সামনে খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে মোটরসাইকেল রাইডিংয়ের কিছু গুরুত্বপুর্ন বিষয় উপস্থাপন করব।

বাংলাদেশ ষড় ঋতুর দেশ হলেও এখানকার আবহাওয়া তিনটি মৌসুমে ভাগ করা যায় যেগুলো হল: ১. গরমের মৌসুম ২. বৃষ্টির মৌসুম ৩. ঠান্ডার মৌসুম।

এই লেখাতে আমি তিনটি মৌসুমেই নিরাপদ বাইক চালানোর  টিপস আলোচনা করব। তো শুরু করা যাক:

১. গরমের মৌসুমঃ

গরমের মৌসুমে খারাপ আবহাওয়া বলতে, মনেকরেন বাইরে ৩৬ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রা  আর আপনাকে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হতে হবে, তাহলে আপনাকে কেমন লাগবে বলুনতো। আর এই গরমের মৌসুমে মোটরসাইকেল চালকদের হরেক রকমের সমস্যায় পরতে হয়। গরমের মোৗসুমে মোটরসাইকেল চালকদের প্রধান যে সমস্যা সমূহের মধ্যে পরতে হয় তাহলো, সানবার্ন , ডিহাইড্রেশন এবং ঝড়ের কবলে পরা ইত্যাদি।

আসুন জেনে নেই কিভাবে এই পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

গরমে বাইক চালানোর সময় শরীর থেকে প্রচুর ঘাম নির্গত হয় এতে আপনি ডিহাইড্রেশন সমস্যায় পরতে পারেন আর এই সমস্যা থেকে  রক্ষা পেতে হালকা সূতির ঢিলেঢালা পোশাক পরিধান করতে হবে। অপরদিকে সানবার্ন থেকে রক্ষার জন্য অবশ্যই ফুল হাতা শার্ট পরিধান করবেন এবং চোখে বড় রঙ্গীন চশমা পরবেন।

আর গরমের মৌসুমে অর্থাৎ চৈত্র, বৈশাখ, জৈষ্ঠ মাস কালবৈশাখি ঝড়ের মাস এই সময়ে হঠাৎ ঝড়ের কবলে পরতে পারেন আর এই ঝড়ের  কবলে পড়লে কোন গাছের পাশে দাড়াবেননা, প্রয়োজনে যত দ্রুত সম্ভব নিরাপদ আশ্রয়ে পৌছানোর চেষ্টা করুন। ঝড়ের তীব্রতা বেশি হলে বাইক না চালিয়ে রাস্তার একপাশে নিরাপদ জায়গায় অপেক্ষা করুন।

২. বৃষ্টির মৌসুমঃ

বৃষ্টির মৌসুমে চারদিকে থই থই পনি আর পিচ্ছিল অবস্থা বিরাজ করে। এই অবস্থায় বাইক চালানো কিছুটা বিপদজনক। তবে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলে খারাপ আবহাওয়ার মাঝেও ভালোভাবে মোটরসাইকেল চালানো যায়।

বৃষ্টির সময় বাইক নিয়ে বের হওয়ার সময় সাথে রেইনকোট নিতে ভুলবেননা। আবহাওয়া একটু খারাপ দেখলে রেইনকোট পড়ে নিন, আপনার দরকারি সব জিনিষ যেমন; মোবাইল, মানিব্যগ, ঘড়ি, চশমা কোন প্লাস্টিক প্যাকেটে বা রেইনকোটের মধ্যে রাখুন। ডানে-বামে বাক নেওয়ার সময় সতর্কতা অবলম্বন করুন। ঘাসযুক্ত ও কর্দমাক্ত রাস্তায়  সতর্কতার সাথে মোটরসাকেল চালান। সব সময় আস্তে ব্রেক চাপুন। আকাশ মেঘে আচ্ছন্ন হলে হেডলাইট জ্বালান।

৩. ঠান্ডার মৌসুমঃ

ঠান্ডার মৌসুম আমাদের দেশে খুব সল্প সময়ের পৌষ মাসের মাঝ থেকে মাঘ মাসের শেষে দিক পর্যন্ত আবহাওয়া কনকনে ঠান্ডা আর চারিদিকে ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকে আর এই সময় বাইক চালানোটা অনেক কষ্টকর। কুয়াশার মধ্যে বাইক চালানোর সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে অনেক হতাহতের ঘটনা ঘটে। তাই এই সময় ফগ লাইট ব্যবহার করা জরুরি। আর শীতে রাস্তা পিচ্ছিল হওয়া থেকে রক্ষা পেতে টায়ারের গ্রীব চেক করে নিতে হবে।

কনকনে ঠান্ডার সময়  শরীর গরম রাখতে গরম কাপড়, হেলমেট, বুট, গ্লাভস পরতে হবে। এছাড়াও  পায়ে অবশ্যই মোজাসহ জুতা পরবেন।

উপরোক্ত বিষয় গুলো অনুসরন করলে আপনি খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে সাচ্ছন্দে মোটরসাইকে চালাতে পারবেন। তবে মাথায় রাখবেন সময়ের  চেয়ে জিবনের মূল্য অনেক বেশি আর বিপদ কখনো বলে কয়ে আসেনা তাই যতদুর সম্ভব খারাপ আবহাওয়ায় বাইক চালানো থেকে দুরে থাকুন।

 

আরো প্রাসঙ্গিক প্রবন্ধ লোড করুন
আরো লোড করুন মোটরসাইকেলবিডি
আরো লোড করুন মোটরসাইকেল টিপস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।