সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ (Suzuki Intruder 150) ফিচার রিভিউ

সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০


সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ (Suzuki Intruder 150) ফিচার রিভিউ

সুজুকি হচ্ছে এমন একটি মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড যারা সব ধরণের মোটরসাইকেল উৎপাদন করে থাকে। বিশেষ করে আমরা ইতিমধ্যে সুজুকি ব্র্যান্ডের অসাধারণ সব স্পোর্টস বাইক বাজারে দেখেছি যেগুলো বাংলাদেশের মোটরসাইকেল জগতে ব্যাপক সফলতা অর্জন করেছে যার দরুন সুজুকি এখন বাংলাদেশের অন্যতম প্রথম সারির একটি মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড। এই সুজুকি মোটরসাইকেল কোম্পানিকে আমরা বেশিরভাগ সময়ে দেখেছি স্পোর্টস ক্যাটাগরির বাইক তৈরি করতে যার জন্য তাদের ক্রুজার বাইকের সংখ্যা খুবই কম কিন্তু ২০১৮ সালে তারা বাজারে নিয়ে আসতে যাচ্ছে তাদের একদমি ভিন্ন ধরণের ডিজাইনের একটি উন্নত মানের ক্রুজার বাইক। আর এই ক্রুজার বাইকটির অদ্ভুত ধরণের ডিজাইন দেখার পর অনেক মোটরসাইকেল প্রেমিই অধির আগ্রহে অপেক্ষা করবেন আশা করি মোটরসাইকেলটি সামনা সামনি দেখার জন্য এবং ক্রয় করার জন্য। সুজুকির নতুন এই ক্রুজার বাইকটি হচ্ছে সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ (Suzuki Intruder 150) যার অসাধারণ ইউনিক এবং স্টাইলিশ ডিজাইন ও অন্যান্য সব ফিচার সমূহ আশা করি সবাইকে মুগ্ধ করবে। তো চলুন জেনে নেয়া যাক কি ধরণের ফিচার থাকছে চমৎকার এই ক্রুজার বাইকটিতে।

ডিজাইনঃ

সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ এই ক্রুজার বাইকটি যখন কেউ দেখবে তখন প্রথম দর্শনেই যে কেউ অবাক হবেন কারণ কোন মোটরসাইকেল রাইডার এর আগে এ ধরণের কোন বাইক বাজারে দেখেননি। এই ক্রুজার বাইকটি একদমি ভিন্ন ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যা বেশ স্মার্ট এবং স্টাইলিশ যা সহজেই সবার নজর কাড়তে সক্ষম। সামনের দিক থেকে দেখতে গেলে প্রথমেই সবার নজর আটকে যাবে বাইকের হেডলাইটের দিকে কারণ অদ্ভুত ধরণের একদম আলাদা ডিজাইনের এই হেডলাইটটি চমৎকারভাবে চারিদিকে প্লাস্টিকের বেস্টনির মধ্যে রাখা হয়েছে যা দেখতে লম্বা আকারের এবং এ ধরণের ডিজাইন এর আগে কোন বাইকের হেডলাইটেই করা হয়নি। এর পর বাইকের হ্যান্ডেলটিও বেশ আলাদা ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যা হেডলাইটের সাথে সংযুক্ত করা রয়েছে। এই ক্রুজার বাইকের সব থেকে আকর্ষনিয় অংশ হচ্ছে বাইকের ফুয়েল ট্যাংক যেটি বেশ বড় সাইজের এবং চমৎকার অদ্ভুত ভাবে ডিজাইন করা যা এর আগে কোন ক্রুজার বাইকের ফুয়েল ট্যাংকে দেখা যায়নি। আমরা জানি যে প্রত্যেকটা ক্রুজার বাইকের ফুয়েল ট্যাংকই বেশ আলাদা ভাবে ডিজাইন করা হয়ে থাকে কিন্তু এই বাইকের ফুয়েল ট্যাংকটি সবার থেকে আরো আলাদা যা সত্যিই বাইকারদেরকে বিস্মিত করবে। এই ফুয়েল ট্যাংকটি বেশ চওড়া ও উঁচু ভাবে তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া বাইকের পেছনের অংশে বসার আরামদায়ক সিটটি বেশ চমৎকারভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যেটি বাইকারের জন্য নিচু আকারে এবং বাইকে আরহনকারির জন্য সামান্য উঁচু ভাবে তৈরি করা হয়েছে আর এটিও সহজেই সকলের নজর কাড়বে। এই ক্রুজার বাইকের আরেকটি আকর্ষনিয় অংশ হচ্ছে এর টুইন সিলেন্সার পাইপ যেটি অদ্ভুত ভাবে ডিজাইন করা এবং বেশ আকর্ষনিয় দেখতে। সর্ব শেষ এই অসাধারণ ক্রুজার বাইকের ডিজাইন সমর্কে বলতে গেলে একটা কথা বলতে হয় যে কেউ এই বাইকটি দেখার পর এর ডিজাইন দেখে বিস্মিত হবে কারণ বাইকটি অনেকটা রোবটিক আকারে ডিজাইন করা আর এর কারণে স্টাইলিশ বাইকারদেরকে এই বাইকটি কিনতে আগ্রহী করে তুলবে সহজেই।

ইঞ্জিনঃ

৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার, একটি এয়ার কোল্ড, এসওএইচসি এবং ২টি ভাল্ভ সমৃদ্ধ ইঞ্জিন রয়েছে এই ক্রুজার বাইকটিতে। আর এই মোটরসাইকেলটির ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন সংযুক্ত করা হয়েছে ১৫৪.৯ সিসি যা সত্যিই অসাধারণ। এই ইঞ্জিনের সর্বচ্চ পাওয়ার হচ্ছে ১৪.৮ পিএস এবং ৮০০০ আরপিএম আর ইঞ্জিনের সর্বচ্চ তোরকিউ হচ্ছে ১৪ এনএম এবং ৬০০০ আরপিএম। এছাড়াও ইঞ্জিনে আরো রয়েছে একটি কার্বুরেটর।

গিয়ারঃ

সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ মোটরসাইকেলটিতে ৫টি স্পীড গিয়ার সমৃদ্ধ একটি গিয়ার বক্স সংযুক্ত করা হয়েছে যা সত্যিই বাইকারদের জন্য অসাধারণ একটি বিষয়।

স্পিড এবং মাইলিয়েজঃ

সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ মোটরসাইকেলের স্পিড মোটামুটি ভাল বলা যায় কারণ এই মোটরসাইকেলটি সর্বচ্চ ১১০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় ছুটতে সক্ষম যা মোটামুটি ভাল মানের স্পীড। তবে মাইলিয়েজের দিক থেকে খুব একটা ভাল নয় এই মোটরসাইকেলটি কারণ এই মোটরসাইকেলটি প্রতি লিটারে সর্বচ্চ ৪৪ কিলোমিটার পর্যন্ত যেতে পারবে। 

ফুয়েল ট্যাংকঃ 

সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ মোটরসাইকেলের ফুয়েল ট্যাংকটি চমৎকার দেখতে যা একদমি ভিন্ন ধরণের ডিজাইন করা হয়েছে আর এই ফুয়েল ট্যাংকটি বেশ বড় সাইজের কিন্তু এটিতে ফুয়েল ধারণ করার ক্ষমতা খুব একটা বেশি নয়। এই ফুয়েল ট্যাংকটি সর্বচ্চ ১১ লিটার পর্যন্ত ফুয়েল ধারণ করতে সক্ষম যা মোটামুটি মানের ফুয়েল ক্যাপাসিটি এবং এটিতে রিজার্ভ ১ লিটার ফুয়েল ধারণ ক্ষমতা আছে।

সাস্পেনশনঃ

বেশ উন্নত মানের সাস্পেনশন সিস্টেম সংযুক্ত করা হয়েছে এই সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ মোটরসাইকেলটিতে। এই মোটরসাইকেলের সামনের দিকে আছে একটি টেলিস্কপিক ফর্ক সাস্পেনশন এবং এই বাইকের পেছনের দিকে একটি সুইং আর্ম সাস্পেনশন রয়েছে যা এই ধরণের ক্রুজার বাইকের জন্য সত্যিই বেশ ভাল।

ব্রেকঃ

সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ মোটরসাইকেলটিতে দুটি বেশ মজবুত এবং শক্তিশালী ব্রেকিং সিস্টেম রাখা হয়েছে। এই ক্রুজার বাইকটি ভালভাবে নিয়ন্ত্রন করতে এগুলো বেশ কার্যকর ভূমিকা রাখবে। এই মোটরসাইকেলের সামনের দিকে একটি ডিস্ক এবং পেছনের দিকেও একটি ডিস্ক ধরণের ব্রেকিং সিস্টেম রয়েছে যেগুলো সত্যিই বেশ মজবুত এবং শক্তিশালী।

মুল্যঃ

বাংলাদেশের বাজার অনুসারে মোটরসাইকেলটির বর্তমান মুল্য ৩২৫,০০০ টাকা। 

শেষ কথাঃ

সুজুকি ইন্ট্রুডার ১৫০ হচ্ছে সুজুকি মোটরসাইকেল কোম্পানির অসাধারণ এবং ভিন্ন ধরণের ডিজাইনের একটি ক্রুজার ক্যাটাগরির মোটরসাইকেল যার ইউনিক ডিজাইন শক্তিশালী ইঞ্জিন কুয়ালিটি এবং অসাধারণ সব ফিচার সমূহ সহজেই মোটরসাইকেল প্রেমিদের আকৃষ্ট করবে। আর এই অদ্ভুত ডিজাইনের মোটরসাইকেলটি দেখার পর এবং এই মোটরসাইকেলটি সম্পর্কে জানার পর অনেকেই এই মোটরসাইকেলটি কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করবে।

Full Specification of Suzuki Intruder 150