সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ (Suzuki GSX-R 150) ফিচার রিভিউ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০


সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ (Suzuki GSX-R 150) ফিচার রিভিউ

সুজুকি হচ্ছে জাপানিজ মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড এবং বিশ্বের সেরা সব মোটরসাইকেল ব্র্যান্ডের মধ্যে অন্যতম। আর শুধু সারা বিশ্বেই নয় সুজুকি হচ্ছে বাংলাদেশের মোটরসাইকেল মার্কেট প্লেসে অন্যতম সেরা মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড যারা তাদের অসাধারণ সব মোটরসাইকেল উপহার দিয়ে এ দেশের মানুষের মোটরসাইকেলের চাহিদা পূরণ করে আসছে অনেক বছর যাবৎ। আর এখন বর্তমানেও বাংলাদেশের তরুণ বাইকারদের কাছে সুজুকির স্পোর্টস বাইকের চাহিদা ব্যাপক যার কারণে সুজুকি প্রতিনিয়ত তাদের নতুন নতুন ডিজাইনের অসাধারণ সব স্পোর্টস বাইক বাংলাদেশে সরবরাহ করে যাচ্ছে। আর আজকে আমি সুজুকির এমন একটি স্পোর্টস বাইক সম্পর্কে আলোচনা করতে যাচ্ছি যা দেখলে যে কোন মোটরসাইকেল প্রেমি এই বাইকের থেকে চোখ ফেরাতে পারবেনা এবং যে কেউ এই বাইকটি কিনতে আগ্রহী হবে প্রথম দেখেই। আর সেই মোটরসাইকেলটি হচ্ছে সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ (Suzuki GSX-R 150)। তো চলুন জেনে নেয়া যাক এই অসাধারণ মোটরসাইকেলটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

ডিজাইনঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ বাইকটি হচ্ছে বিশাল দেহের ভিন্ন ধরণের ডিজাইনের একটি বাইক। যার সামনের অংশ একদম আলাদাভাবে তৈরি করা হয়েছে যেখানে সামনে থেকে দেখলে প্রথমেই আপনার নজর কাড়বে এর চমৎকার ডিজাইনের হেডলাইটটি আর সেই  হেডলাইটের সাথে সংযুক্ত করা বিশাল দুইপাশে দুইটি বড় আকারের প্লাস্টিক সেপ যা হেডলাইট থেকে শুরু করে একদম বাইকের ইঞ্জিন পর্যন্ত ঘেরাও করে রেখেছে আর এর উপরের অংশে GSX-R এবং নিচের অংশে SUZUKI লিখা রয়েছে। এছাড়াও এই বাইকের অসাধারণ ডিজাইনের উঁচু ধরণের ফুয়েল ট্যাংকটি সহজেই যে কারো নজর কাড়বে। আর এই বাইকের অন্যতম আকর্ষন হচ্ছে এই বাইকের বসার স্পেশাল দুটি সিট যার একটি বাইক চালকের জন্য এবং একটি সম্পূর্ণ আলাদাভাবে বাইকে আরহনকারীর জন্য তৈরি করা হয়েছে আর এগুলো আলাদাভাবে আপনার নজর কাড়বে। আর এই বাইকটি বেশ কয়েকটি রঙ্গে বাজারে এসেছে সেগুলো হচ্ছে কালো, নীল, লাল এবং সাদা।

ইঞ্জিনঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ এই মোটরসাইকেলে রয়েছে একটি ওয়াটার কোল্ড কুলিং সিস্টেম, ৪টি স্ট্রোক, ডিওএইচসি, ৪টি ভাল্ভ এবং একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। আর এই বাইকের ডিসপ্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন হচ্ছে ১৪৭.৩ সিসি। এছাড়াও বাইকের সর্বচ্চ ইঞ্জিন পাওয়ার হচ্ছে ১৮.২ বিএইচপি এবং ১০০০০ আরপিএম, এবং এর সর্বচ্চ তরকিউ হচ্ছে ১৩.৮ এনএম এবং ৮৫০০ আরপিএম। এছাড়াও এই ইঞ্জিনে রয়েছে একটি ফুয়েল ইঞ্জেকশন কার্বুরেটর।

গিয়ারঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ এই অসাধারণ স্পোর্টস বাইকটিতে আপনি পাবেন ৬টি স্পিড রিটার্ন ধরণের  গিয়ার যার মাধ্যমে আপনি ৬ বার বাইকটির গিয়ার বদলাতে পারবেন। খুব কম মোটরসাইকেলেই ৬টি স্পিড রিটার্ন ধরণের গিয়ার থাকে।

স্পিড এবং মাইলিয়েজঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ এই  স্টাইলিশ মোটরসাইকেল আপনাকে ভাল মানের স্পিড এবং মাইলিয়েজ দেবে কারণ এই মোটরসাইকেলটি ঘন্টায় ১৪৫ কিলোমিটার পর্যন্ত গতি বেগে ছুটতে সক্ষম। এবং এই বাইকটি প্রতি লিটারে ৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত মাইলিয়েজ দেবে।

ফুয়েল ট্যাংকঃ 

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ এই মোটরসাইকেলটিতে রয়েছে বিশাল বড় এবং অসাধারণ ডিজাইনের একটি ফুয়েল ট্যাংক, এবং শুধু সুন্দর ডিজাইনের দিকেই নয় এই বাইকের ফুয়েল ট্যাংকটি সর্বচ্চ ১১ লিটার পর্যন্ত ফুয়েল ধারণ করতে সক্ষম যার দ্বারা আপনি সহজেই ৪৪০ কিলোমিটার যেতে পারবেন সম্পূর্ণ ভর্তি ফুয়েল ট্যাংকে।

সাস্পেনশনঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ এই মোটরসাইকেলটিতে দুইটি মজবুত সাস্পেনশন সিস্টেম আছে যা এই বাইকটিকে আরো মজবুত রাখতে সহায়তা করবে। এর সামনের দিকে রয়েছে একটি টেলিস্কপিক এবং পেছনের দিকে একটি মনো ধরণের সাস্পেনশন সিস্টেম।

ব্রেকঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ আপনার নিরাপত্তার সার্থে দুটি অসাধারণ এবং শক্তিশালি ব্রেকিং সিস্টেম তৈরি করেছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি এই বাইকটিকে সহজেই নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন। সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ মোটরসাইকেলের সামনের দিকে একটি ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনের দিকেও একটি ডিস্ক ধরণের ব্রেকিং সিস্টেম সংযুক্ত করা হয়েছে।

দামঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ মোটরসাইকেলটি বাংলাদেশের বাজার অনুসারে এর বর্তমান বাজার মূল্য মাত্র ৪,০০,০০০ টাকা।

শেষ কথাঃ

সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ এই বাইকটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানার পর এটা বলা যাই যে এটি সুজুকি মোটরসাইকেল ব্র্যান্ডের অসাধারণ একটি স্পোর্টস বাইক। আর বর্তমান প্রেক্ষাপট উনুযায়ি সুজুকি জিএসএক্স-আর ১৫০ একটি অসাধারণ স্পোর্টস বাইক যার রয়েছে ইউনিক ডিজাইন এবং অসাধারণ শক্তিশালী সব ফিচার যেগুলো যে কোন মোটরসাইকেল প্রেমিকে আকৃষ্ট করবে সহজেই।

Full Specification of Suzuki GSX-R 150