হোম মোটরসাইকেল রিভিউ টেকনিক্যাল রিভিউ হাউজুয়ে টিজেড (Haojue TZ) বাইক টেকনিকাল রিভিউ

হাউজুয়ে টিজেড (Haojue TZ) বাইক টেকনিকাল রিভিউ

0
0
Haojue TZ

হাউজুয়ে টিজেড (Haojue TZ) বাইক টেকনিকাল রিভিউ

হাউজুয়ে টিজেড হচ্ছে হাউজুয়ে মোটরসাইকেল কোম্পানির একটি ক্রুজার ধরণের বাইক। আর এটি ক্রুজার বাইক হলেও দেখতে অনেকটাই সাধারণ স্ট্যান্ডার্ড বাইকের মতোই যার কারণের প্রথম দেখাতে কেউ এটিকে ক্রুজার বাইক ভাবতে পারবেনা। হাউজুয়ে হচ্ছে চাইনিজ মোটরসাইকেল কোম্পানি যারা বেশ কয়েকটি দেশে তাদের মোটরসাইকেল সরবরাহ করে আসছে যার মধ্যে বাংলাদেশ একটি। হাউজুয়ে এর মোটরসাইকেলগুলো বেশ কয়েক বছর যাবৎ বাংলাদেশের মোটরসাইকেল মার্কেটে দেখা যাচ্ছে। আর বর্তমান সময়ে ক্রুজার বাইকের একটি অন্যরকম চাহিদা থাকাই হাউজুয়ে মোটরসাইকেল কোম্পানি অন্যান্য ক্যাটাগরির বাইকের পাশাপাশি ক্রুজার বাইক তৈরি করছে যার অন্যতম একটি হচ্ছে এই হাউজুয়ে টিজেড (Haojue TZ) মোটরসাইকেল। আর এই বাইকের অন্যান্য ফিচারের পাশাপাশি এর টেকনিকাল দিকেও বেশ কিছু ভাল মানের টেকনিকাল উপাদান রাখা হয়েছে আর আজকে জেনে নেবো এই বাইকের টেকনিকাল বিষয় সমূহ।

ডিজাইনঃ

বেশ লম্বা দেহের মোটরসাইকেল হচ্ছে এই হাউজুয়ে টিজেড ক্রুজার। তবে এটি একটি ক্রুজার বাইক হলেও দেখতে অনেকটাই সাধারণ স্ট্যান্ডার্ড বাইকের মতোই। কারণ এই বাইকটি একদম সাধারণ ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে। অন্যান্য ক্রুজার বাইকে আমরা দেখতে পাই যে তাদের হ্যান্ডেলগুলো বেশ উঁচু ধরণের হয়ে থাকে কিন্তু এই বাইকের হ্যান্ডেল সাধারণ বাইকের মতোই নিচু ধরণের। আর এর সামনের দিকে রয়েছে একটি বৃত্তাকার টিনি হেডল্যাম্প আর এটি বেশ ছোট আকারের দেখতে। আর এর মাঝাড়ি সাইজের ফুয়েল ট্যাংকটি সামান্য লম্বা এবং চিকন আকারে তৈরি করা হয়েছে যার বডিতে Haujue লিখা রয়েছে। আর উঁচু নিচু ঢেউ খেলানো বসার সিটটি মোটামুটি লম্বা এবং চমৎকার দেখতে। অনেক ক্রুজার বাইকেই আমরা দেখতে পাই যে তাদের ট্যায়ারগুলো বেশ মোটা ধরণের হয়ে থাকে কিন্তু এই বাইকটির ট্যায়ার দুটো মাঝাড়ি সাইজের এবং স্ট্যান্ডার্ড বাইকের ট্যায়ারের মতোই।

কন্ট্রোলঃ

হাউজুয়ে টিজেড মোটরসাইকেলের কন্ট্রোলিং সিস্টেম নিয়ে চিন্তা করতে হবেনা বাইকারদের কারণ গ্রাম হোক বা শহর যে কোন রাস্তায় এ মোটরসাইকেলটি চালিয়ে যেতে কোন সমস্যা হবেনা আশা করি। আর ১৩৫ সিসি বাইক হিসেবে বাইকটি ভালভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে এর ডিস্ক এবং ড্রাম ধরণের দুটি ব্রেকই যথেষ্ঠ।

ইঞ্জিনঃ

খুব ভাল মানের একটি ইঞ্জিন পাবেন আপনি এ হাউজুয়ে টিজেড ক্রুজার বাইকটিতে। এই বাইকের ১৩৫ সিসি ইঞ্জিনের সাথে একটি এয়ার কোল্ড কুলিং সিস্টেম, ৪টি স্ট্রোক এবং একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার সত্যিই প্রশংসনীয়। আর এর সাথে ইঞ্জিনকে আরো শক্তিশালী করে তুলেছে এর ৭.৮ কিলোওয়াট এবং ৮০০০ আরপিএম ম্যাক্সিমাম পাওয়ার এবং ১০.২ ও ৬৫০০ আরপিএম ধরণের ম্যাক্সিমাম তোরকিউ যা এই ইঞ্জিনের শক্তি বৃদ্ধি করতে সত্যিই অসাধারণ ভূমিকা রেখেছে। শুধু এটুকুই নয় এই ক্রুজার বাইকের ইঞ্জিনে আপনি আরো পাবেন ৫টি গিয়ার সমৃদ্ধ একটি গিয়ারবক্স এবং একটি ডিজিটাল সি ডি আই ধরণের ইগনিশন সিস্টেম আর এগুলো দেখে সত্যিই আপনি এই ইঞ্জিনের প্রশংসা না করে পারবেন না। আর বাইকটি দ্রুত চালু করতে বাইকটিতে রয়েছে দুটি স্টার্টাপ সিস্টেম একটি ইলেক্ট্রিক এবং একটি কিক স্টার্টার।

<<=অন্যান্য ফিচার=>>

সাস্পেনশন এবং ব্রেক

হাউজুয়ে টিজেড এই চমৎকার ক্রুজার বাইকের শক্তিশালী দুটি সাস্পেনশন সিস্টেম বাইকারদের সহজেই মুগ্ধ করবে কারণ এই বাইকটিতে রয়েছে একটি টেলিস্কপিক এবং টুইন শক্স ধরণের চমৎকার সাস্পেনশন সিস্টেম যা সত্যিই একটি বাইকের জন্য বেশ ভাল। আর বাইকটি নিয়ন্ত্রণ করতে এর ব্রেকিং সিস্টেমও মোটামুটি ভাল মানের তৈরি করা হয়েছে যেখানে আপনি পাচ্ছেন সামনে একটি ডিস্ক এবং পেছনের দিকে একটি ড্রাম ধরণের ব্রেকিং সিস্টেম।

হেডল্যাম্পঃ

এই ক্রুজারের হেডল্যাম্পটি দেখতে ছোট আকারের হলেও এটি বেশ উজ্জ্বল এবং ভাল মানের। আর এখানে রয়েছে একটি HSI ১২ ভোল্ট সমৃদ্ধ ৩৫ওয়াট/৩৫ওয়াট এর একটি হেডল্যাম্প একটি ক্রিস্টাল ধরণের টেইল ল্যাম্প এবং ১২ ভোল্ট সমৃদ্ধ ১০ x ৪ ওয়াটের একটি টার্ন ল্যাম্প।

স্পিড এবং মাইলিয়েজঃ

খুব একটা বেশি স্পিড পাবেন না আপনি এই মোটরসাইকেলটিতে কারণ ১৩৫ সিসির এই বাইকটি প্রতি ঘন্টায় সর্বচ্চ ১০০ কিলোমিটার গতি বেগে যেতে পারবে যা খুব একটা ভাল মানের স্পিড নয়। তবে মাইলিয়েজের দিক থেকে বেশ ভাল এই মোটরসাইকেলটি কারণ এই মোটরসাইকেলটি প্রতি লিটারে ৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত যেতে পারবে বলে দাবি করে। আর এই বাইকের ফুয়েল ক্যাপাসিটিও খুব কম কারণ এখানে সর্বচ্চ ৯ লিটার ফুয়েল ধারণ ক্ষমতা রয়েছে।

ভাল দিকঃ

  • খুব ভাল মানের ইঞ্জিন কুয়ালিটি রয়েছে বাইকটিতে।
  • ভাল মানের মাইলিয়েজ।
  • টুইন শক্স ধরণের উন্নত মানের সাস্পেনশন সিস্টেম।

খারাপ দিকঃ

  • অন্যান্য ক্রুজার বাইকের তুলনায় অনুন্নত ডিজাইন।
  • ফুয়েল ক্যাপাসিটি খুবই কম।
  • তুলনামূলক কম স্পিড।  

শেষ কথাঃ

হাউজুয়ে টিজেড ক্রুজার বাইকটির টেকনিকাল বিষয় সম্পর্কে জানার পর এটুকু বলা যায় যে এই বাইকটিতে মোটামুটি বেশ ভাল মানের কিছু টেকনিকাল উপাদান রয়েছে যার কারণে বাইকাররা সহজেই এই বাইকের প্রতি আকৃষ্ট হবেন। আর এ ধরণের টেকনিকাল উপাদানসমূহ একটি ১৩৫ সিসির বাইকের জন্য সত্যিই বেশ ভাল।

Full Specification of Haojue TZ
আরো প্রাসঙ্গিক প্রবন্ধ লোড করুন
আরো লোড করুন মোটরসাইকেলবিডি
আরো লোড করুন টেকনিক্যাল রিভিউ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।