এইচ পাওয়ার মোটরসাইকেলের দাম ২০১৯

এইচ পাওয়ার মোটরসাইকেলের দাম ২০১৯


এইচ পাওয়ার মোটরসাইকেলের দাম ২০১৯

এইচ পাওয়ার মোটরসাইকেলের দাম ২০১৯! এইচ পাওয়ার বাইকের দাম ২০১৯! আপনি কি নতুন এইচ পাওয়ার মোটরসাইকেল এর দাম জানতে চান? বাংলাদেশে সাম্প্রতিক আপডেট বাইক এর দাম? সৌভাগ্যবশত, আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। মোটরসাইকেলবিডি এইচ পাওয়ার ব্রান্ডের বাইকের একটি সম্পূর্ণ তালিকা প্রদান করেছে। আপনি এক নজরে দেখে নিতে পারেন এইচ পাওয়ার ব্রান্ডের বাইক এর দাম ২০১৯ তালিকা।

বাইক নাম এবং বিবরণী
সিসি দাম ফিচার
এইচ পাওয়ার চেরি ইলেকট্রিক ৬৬০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার জারা ১১০ ১১০ ৯৭০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার ম্যাক্স জেড ১৫০ ১২৩০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার ভি সিক্স ১২৫ ১১৮৫০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার ম্যাক্স ১৫০ ১২২৫০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার আর জেড ৩ ১৫০ ২০০০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার জারা ১১০ ডিজিটাল ১১০ ১০৫০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার আর এস জেড ১৫০ ১৬০০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার ডার্ক ১৫০ ১৮৫০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার জারা ডি ডি ৮০ ৮০ ৬৮০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার স্মার্ট ইলেকট্রিক ৬৬০০০/= বিস্তারিত
লনকিন জিপি ১৫০ রোবট জেড ১৫০ ১৬৫০০০/= বিস্তারিত
এইচ পাওয়ার রিকোভার ১০০ ১১৫০০০/= বিস্তারিত

এইচ পাওয়ার হচ্ছে বাংলাদেশী একটি মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড। এইচ পাওয়ার বাংলাদেশী মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড হলেও খুব একটা জনপ্রিয় নয় ব্র্যান্ডটি। তবে এইচ পাওয়ার প্রায় সব ধরণের মোটরসাইকেলই উৎপাদন করে থাকে স্পোর্টস থেকে শুরু করে স্ট্যান্ডার্ড, ক্রুজার এবং ইলেক্ট্রিক বাইকও রয়েছে এই কোম্পানির মোটরসাইকেল ক্যাটাগরিতে। আর আজকে আমি আপনাদের মাঝে এইচ পাওয়ার ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেলগুলো সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আকারে কিছু তথ্য এবং মোটরসাইকেলগুলোর মূল্যসমূহ উপস্থাপন করবো আশা করি মোটরসাইকেল প্রেমিরা এইচ পাওয়ার ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেলগুলো সম্পর্কে মোটামুটি ভাল একটা ধারণা পেয়ে যাবেন।

তো চলুন জেনে নেয়া যাক এইচ পাওয়ার ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেগুলো সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আকারে কিছু তথ্য এবং এদের মুল্যসমূহ।

এইচ পাওয়ার চেরিঃ এইচ পাওয়ার চেরি একটি ইলেক্ট্রিক স্কুটার ধরণের বাইক। এই ইলেক্ট্রিক স্কুটারটিতে রয়েছে ৩৫০ ওয়াট ব্যাটারি, ৪৮ ভোল্ট লিড এসিড ব্যাটারি এবং এই স্কুটারটি সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত যেতে সক্ষম।

এইচ পাওয়ার স্মার্টঃ এইচ পাওয়ার স্মার্ট একটি ইলেক্ট্রিক স্কুটার ধরণের বাইক। এই ইলেক্ট্রিক স্কুটারটিতে রয়েছে ৮০০ ওয়াট ব্যাটারি, ৬০ ভোল্ট লিড এসিড ব্যাটারি এবং এই স্কুটারটি সর্বোচ্চ ৯৫ কিলোমিটার পর্যন্ত যেতে সক্ষম।

এইচ পাওয়ার ম্যাক্সঃ এইচ পাওয়ার ম্যাক্স হচ্ছে একটি স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির ১৫০ সিসির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১৪৯.৭ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার ম্যাক্স বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১০৭ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৩৬.৫ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনে ড্রাম ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার ম্যাক্স জেডঃ এইচ পাওয়ার ম্যাক্স জেড একটি স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির ১৫০ সিসির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১৪৯.৭ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার ম্যাক্স বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১২০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৪৫ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে এবং পেছনে উভয় দিকেই ডিস্ক ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার আর জেড ৩ঃ এইচ পাওয়ার আর জেড ৩ একটি স্পোর্টস ক্যাটাগরির ১৫০ সিসির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১৫০ সিসি যার সাথে আছে একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং ৪টি স্ট্রোক সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার আর জেড ৩ বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১৩০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৫০ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে এবং পেছনে উভয় দিকেই ডিস্ক ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার আর এস জেডঃ এইচ পাওয়ার আর এস জেড একটি স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির ১৫০ সিসির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১৪৯.৭ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার আর এস জেড বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১২০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৪৫ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে এবং পেছনে উভয় দিকেই ডিস্ক ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার ডার্কঃ এইচ পাওয়ার ডার্ক একটি ১৫০ সিসির ক্রুজার বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১৪৯.৭ সিসি যার সাথে আছে একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার ডার্ক ক্রুজার বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১২০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৪৫ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনে ড্রাম ধরণের ব্রেক রয়েছে।

লনকিন জিপি ১৫০ রোবট জেডঃ লনকিন জিপি ১৫০ রোবট জেড একটি স্পোর্টস ক্যাটাগরির ১৫০ সিসির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১৪৯.৯ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি অইল কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। লনকিন জিপি ১৫০ রোবট জেড বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১৪৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৪৫ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে এবং পেছনে উভয় দিকেই ডিস্ক ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার ভি সিক্সঃ এইচ পাওয়ার ভি সিক্স একটি স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির ১২৫ সিসির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১২৩ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার ভি সিক্স বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৫৫ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনে ড্রাম ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার জারা ১১০ঃ এইচ পাওয়ার জারা ১১০ একটি ১১০ সিসির স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১০৬.৬৭ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার জারা ১১০ বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৬৩ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনে ড্রাম ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার জারা ১১০ ডিজিটালঃ এইচ পাওয়ার জারা ১১০ ডিজিটাল একটি ১১০ সিসির স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১০৬.৬৭ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার জারা ১১০ ডিজিটাল বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৬৩ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনে ড্রাম ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার জারা ডিডি ৮০ঃ এইচ পাওয়ার জারা ডি ডি ৮০ একটি ৮০ সিসির স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ৮৭ সিসি যার সাথে আছে ৪টি স্ট্রোক, একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এবং একটি এয়ার কোল্ড সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার জারা ডি ডি ৮০ বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ৮০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৫১.৪ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে এবং পেছনে উভয় দিকেই ড্রাম ধরণের ব্রেক রয়েছে।

এইচ পাওয়ার রিকোভারঃ এইচ পাওয়ার রিকোভার একটি ১০০ সিসির স্ট্যান্ডার্ড ক্যাটাগরির বাইক। এই বাইকের ডিস্প্লেসিমেন্ট ইঞ্জিন ১০০ সিসি যার সাথে আছে একটি এয়ার কোল্ড, ৪টি স্ট্রোক এবং একটি সিঙ্গেল সিলিন্ডার সমৃদ্ধ ইঞ্জিন। এইচ পাওয়ার রিকোভার বাইকের সর্বোচ্চ স্পিড হচ্ছে ১০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টাই এবং এর মাইলিয়েজ ৫৫ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। এই বাইকের ব্রেকের ধরণ এই বাইকের সামনে এবং পেছনে উভয় দিকেই ডিস্ক ধরণের ব্রেক রয়েছে।